Tuesday, October 27, 2020
খেলার মাঠেটপ নিউজ

সাকিবকে রেখেই এশিয়া কাপের দল, সাব্বির বাদ

256views

সাকিবকে রেখেই এশিয়া কাপের দল, সাব্বির বাদ

sabbir rahmanস্পোর্টস ডেস্ক: স্কোয়াড একরকম তৈরিই ছিল। অপেক্ষা ছিল কেবল হজ থেকে সাকিব আল হাসানের ফেরার। বুধবার রাতে ফিরেছেন সাকিব। কথা বলে সিদ্ধান্ত হলো তার আঙুলের অস্ত্রোপচার আপাতত পিছিয়ে দেওয়ার। এই অলরাউন্ডারকে রেখেই তাই ঘোষণা করা হয়েছে এশিয়া কাপ ক্রিকেটের বাংলাদেশ দল। ১৫ সদস্যের দলে ফিরেছেন ব্যাটসম্যান মোহাম্মদ মিঠুন। আর প্রথমবারের মতো ওয়ানডে দলে ডাক পেয়েছেন অলরাউন্ডার আরিফুল হক। বাঁহাতের কনিষ্ঠায় ব্যথা নিয়েই গত কিছুদিন ধরে খেলছেন সাকিব। ব্যথা তীব্র হয়ে উঠলে ম্যাচ খেলেছেন ব্যথানাশক ইনজেকশন নিয়ে। চোট পুরোপুরি সারাতে অস্ত্রাপচারের বিকল্প নেই। তবে ব্যথানাশক ইনজেকশন নিয়ে খেলা চালিয়ে যেতে পারবেন আপাতত। তার অস্ত্রোপচারের সম্ভাব্য সময় নিয়ে চলছিল আলোচনা। অস্ত্রোপচারের পর মাঠে ফিরতে সময় লাগবে মাস দুয়েক।

দলের সূচি বিবেচনায় রেখে খোঁজা হচ্ছিল উপযুক্ত সময়। ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও যুক্তরাষ্ট্র সফর থেকে দেশে ফিরে সাকিব বলেছিলেন, যত দ্রুত সম্ভব অস্ত্রোপচার করে ফেলতে চান। তবে বিসিবির চাওয়া ছিল, খেলা চালিয়ে যাওয়া সম্ভব হলে এশিয়া কাপ খেলে এরপর অস্ত্রোপচার করানো। হজের সময় সাকিবের সঙ্গে এটা নিয়ে কথা বলেন বিসিবি প্রধান। কথা বলেছেন সাকিব দেশে ফেরার পরও। শেষ পর্যন্ত দুই পক্ষের চাওয়া মিলেছে এক বিন্দুতে। সবশেষ ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজের ১৬ সদস্যের ওয়ানডে দল থেকে বাদ পড়েছেন ওপেনার এনামুল হক, ব্যাটসম্যান সাব্বির রহমান ও পেসার আবু জায়েদ চৌধুরী। ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে তিন ম্যাচের সবকটিসহ এই বছর ৮ ওয়ানডের ৭টিই খেলেছেন এনামুল। কাজে লাগাতে পারেননি সুযোগ। তার বাদ পড়া অনুমিতই ছিল। এশিয়া কাপে তামিম ইকবালের সঙ্গে উদ্বোধনী জুটির সঙ্গী হবেন লিটন দাস। তৃতীয় ওপেনার হিসবে আছেন নাজমুল হোসেন শান্ত। প্রয়োজনে তরুণ বাঁহাতি ব্যাটসম্যান খেলতে পারবেন তিনে বা মিডল অর্ডারেও।

সাব্বিরের বাদ পড়ায় বাজে ফর্মের পাশাপাশি ভ‚মিকা আছে মাঠের বাইরের আচরণেরও। শৃঙ্খলাভঙ্গের কারণে তার নিষেধাজ্ঞা পাওয়া একরকম নিশ্চিত। দলের বাইরে রাখতে হতোই তাকে। আবু জায়েদ বাদ পড়েছেন কোনো ম্যাচ না খেলেই। এশিয়া কাপের স্কোয়াড যেহেতু ১৫ জনের, আগের সিরিজের ১৬ জনের দলের কোনো একজনের ওপর খড়গ পড়তই। মিঠুন ওয়ানডে ক্যারিয়ারে খেলেছেন তিনটি ম্যাচ। ব্যাট করেছন দুটিতে। দুটিই টপ অর্ডারে। ২০১৪ সালে ভারতে বিপক্ষে অভিষেক ওয়ানডেতে তিনে নেমে করেছিলেন ২৬ রান। প্রায় চার বছর সুযোগ পান গত জানুয়ারিতে দেশের মাটিতে ত্রিদেশীয় সিরিজে। প্রাথমিক পর্বে ম্যাচগুলো না খেললেও এনামুলের টানা ব্যর্থতায় হুট করে ফাইনালে নামানো হয় ওপেনিংয়ে। ১০ রানে আউট হওয়ার পর আবার জায়গা হারান দলে।

তবে এবার মিঠুনকে নেওয়া হয়েছে সাব্বিরের পজিশন, ছয়-সাত নম্বরের বিবেচনায়। সম্প্রতি বাংলাদেশ ‘এ’ দলের হয়ে আয়ারল্যান্ড সফরে দারুণ কিছু ঝড়ো ইনিংস খেলেছেন মিঠুন। আইরিশদের বিপক্ষে শেষ টি-টোয়েন্টিতে খেলেছিলেন ৩৯ বলে ৮০ রানের বিস্ফোরক ইনিংস। তার আগে আনঅফিসিয়াল ওয়ানডে সিরিজের শেষ দুই ম্যাচে করেছিলেন ৫১ বলে ৮৭ ও ৭৩ বলে ৭৩। ছয়-সাত নম্বরের বিবেচনায় থাকবেন আরিফুলও। বাংলাদেশের হয়ে এখনও পর্যন্ত খেলছেন ছয়টি টি-টোয়েন্টি। কার্যকর একজন পেস বোলিং অলরাউন্ডার খোঁজার অভিযানে আপাতত বাজি ২৫ বছর বয়সী এই অলরাউন্ডার।

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বাংলাদেশের ম্যাচ দিয়ে আগামি ১৫ সেপ্টেম্বর শুরু এবারের এশিয়া কাপ। বাংলাদেশ দল ঢাকা ছাড়বে ৯ সেপ্টেম্বর। ওয়ানডের বাংলাদেশ দল: মাশরাফি বিন মুর্তজা (অধিনায়ক), সাকিব আল হাসান (সহ-অধিনায়ক), তামিম ইকবাল, মোহাম্মদ মিঠুন, লিটন কুমার দাস, মুশফিকুর রহিম, আরিফুল হক, মাহমুদউল্লাহ, মোসাদ্দেক হোসেন, নাজমুল হোসেন শান্ত, মেহেদী হাসান মিরাজ, নাজমুল ইসলাম অপু, রুবেল হোসেন, মুস্তাফিজুর রহমান, আবু হায়দার।

Leave a Response