Tuesday, October 27, 2020
টপ নিউজরাজনীতি

শেষ মুহুর্তে ব্যস্ত মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীরা, আজ থামছে প্রচারণা

249views

শেষ মুহুর্তে ব্যস্ত মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীরা, আজ থামছে প্রচারণা

Rajshahi City Corporationহাবিব আহমেদ: আজ মধ্যরাত থেকে বন্ধ হয়ে যাচ্ছে রাজশাহী সিটি করপোরেশন নির্বাচনের প্রার্থীদের প্রচার প্রচারণা। প্রার্থীদের পোষ্টার ছাড়া শনিবার রাত ১২টার পর থেকে আর কোনো পথসভা, গণসংযোগ করতে পারবেন না। এমনকি প্রার্থীদের পক্ষে কর্মী সমর্থকরাও কোনো ধরনের প্রচারণা চালাতে পারবেনা। যদি কোনো প্রার্থী বা প্রার্থীর সমর্থকরা প্রচার প্রচারণা চালায় তাহলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার ঘোষণা দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। এদিকে রাসিক নির্বাচনের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে নির্বাচন কমিশন। অপরদিকে শেষ মুহুর্তের প্রচার প্রচারণায় ব্যস্ত সময় পার করছেন মেয়র কাউন্সিলর প্রার্থীরা। বৃষ্টিম উপেক্ষা করে প্রার্থীরা ছুটে চলছেন ভোটারদের দ্বারে-দ্বারে।

রাজশাহী সিটি করপোরেশন নির্বাচনের রিটার্নি কর্মকর্তা আতিয়ার রহমান জানান, এবার আইনশৃংখলা রক্ষায় তিনস্তর বিশিষ্ট নিরাপত্তা ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। ভোটের একদিন আগে থেকে পুলিশের পাশাপশি স্টাইকিং ফোর্স, মোবাইল কোর্ট মাঠে থাকবে। রোববার সকাল থেকে নগরীর প্রতিটি মোড়ে মোড়ে পুলিশ মোতায়েন করা হবে। এবার রাসিক নির্বাচনে পুরুষের চেয়ে মহিলা ভোটার সংখ্যা বেশি। রাসিকে মোট ভোটার সংখ্যা ৩লাখ ১৮হাজার ১৩৮। এরমধ্যে মহিলা ভোটার সংখ্যা ১লাখ ৬২হাজার ২৫৩ ও পুরুষ ভোটার সংখ্যা ১লাখ ৫৬হাজার ৮৫। এবার ১৩৮টি কেন্দ্র ভোট গ্রহন হবে। এছাড়াও সাধারণ ২৪টি ভোট কেন্দ্র রাখা হয়েছে। তবে ১২৪টি ভোট কেন্দ্র ঝুঁকিপুর্ন বলে মনে করছেন নির্বাচন কমিশন। এসব ভোট কেন্দ্রগুলোতে থাকবে বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা। ঝুঁকিপুর্ন এসব কেন্দ্র মুলত নগরীর উপকণ্ঠ এলাকাগুলোতে অবস্থিত।

তিনি জানান, নিরাপত্তার দায়িত্বে প্রতিটি কেন্দ্রে থাকবে আনসার সদস্যের পাশাপাশি ৩০জন করে আইশৃংখলা বাহিনীর সদস্য। স্টাইকিং ফোর্স হিসাবে থাকবে র‌্যাব বিজিবি। এছাড়াও পুরো শহরজুড়ে মোবাইল কোর্ট থাকবে। তিনি জানান, ভোটের আগের রাতেই সব ধরনের সরঞ্জামাদি সব কেন্দ্রে কেন্দ্রে পৌছে যাবে। একদিন আগেই কেন্দ্রগুলোতে নিরাপত্তা কর্মীরাও অবস্থান করবে। সুষ্ঠু নির্বাচন করতে যা যা প্রয়োজন নির্বাচন কমিশন থেকে সব করা হবে বলেও জানান তিনি। এবার রাজশাহী সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ৫জন মেয়র ও ২২৩ কাউন্সিলর প্রার্থী অংশ গ্রহণ করছে। এরমধ্যে সংরক্ষিত মহিলা আসনে প্রতিদ্বদ্বিতা করছেন ৫২জন ও সাধারণ কাউন্সিলর পদে প্রতিদ্বদ্বিতা করছেন ১৬৬জন।

এদিকে প্রতিক বরাদ্দের সাথে সাথে সরগরম হয়ে উঠে নগরী। প্রার্থীদের প্রচার প্রচারণায় মুখর ছিল পুরো নগরীজুড়ে। রাসিক নির্বাচনকে কেন্দ্র করে নগরীতে এক প্রকার ঈদের আমেজ বিরাজ করে। তবে এবার অন্য বছরের তুলনায় প্রার্থীরা টানটান উত্তেজনার মধ্যে প্রচার প্রচারণা চালিয়েছেন। শেষ মুহুর্তে এসেও অনেকটাই উত্তাপ্ত রয়েছে ভোটের মাঠ। শেষ মুহুর্তে প্রার্থীরা বৃষ্টি উপেক্ষা করে ছুটছেন ভোটারদের দ্বারে-দ্বারে। নানা প্রতিশ্রুতিতে ভোটারদের মন জয় করার চেষ্টা করছেন মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীরা। শুক্রবার দিনভর গুড়িগুড়ি বৃষ্টির মধ্যে মেয়র কাউন্সিলর প্রার্থীদের গণসংযোগ, পথসভা, প্রচার মিছিল করতে দেখা যায়।

এদিকে রাজশাহী সিটি করপোরেশন (রাসিক) নির্বাচনকে কেন্দ্র করে নিরাপত্তার জন্য যানবাহন ও বৈধ অস্ত্রের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। রাজশাহী জেলা ম্যাজিস্ট্রেট (ভারপ্রাপ্ত) পারভেজ রায়হান স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে নিষেধাজ্ঞার এতথ্য জানানো হয়েছে। সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ‘২৭ জুলাই থেকে ৩ আগস্ট পর্যন্ত সিটি করপোরেশন এলাকায় সব ধরনের বৈধ আগ্নেয়াস্ত্রসহ চলাচল, অস্ত্র বহন বা প্রদর্শন নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হলো। এতে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী এবং বিভিন্ন প্রাতিষ্ঠানিক নিরাপত্তা কর্মীরা এ নিষেধাজ্ঞার অর্ন্তভূক্ত হিসেবে বিবেচিত হবে না’। যানবাহন চলাচলের ক্ষেত্রে বলা হয়েছে, আগামী ২৯ জুলাই মধ্যরাত থেকে ৩০ জুলাই মধ্যরাত ১২টা পর্যন্ত ট্যাক্সি ক্যাব, মাইক্রোবাস, জিপ, পিকআপ ভ্যান, কার, বাস, ট্রাক, টেম্পো, বেবিট্যাক্সি/অটোরিকশা ও ইজিবাইকসহ স্থানীয়ভাবে পরিচিত অন্যান্য সব যন্ত্রচালিত যানবাহন যেমন: নসিমন, করিমন, ভটভটি, টমটম ইত্যাদি বন্ধ থাকবে। এছাড়া মোটরসাইকেল বন্ধ থাকবে ২৮ জুলাই মধ্যরাত থেকে ৩১ জুলাই ভোর ছয়টা পর্যন্ত। তবে নির্বাচন পরিচালনার দায়িত্বে নিযুক্ত কর্মকর্তা-কর্মচারী ও আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী কর্তৃক ব্যবহৃত যানবাহন এবং জরুরি চিকিৎসা, ফায়ার সার্ভিস ও বিদ্যুৎসহ অন্যান্য অত্যাবশ্যকীয় ইউটিলিটি সেবার কাজে ব্যবহৃত যানবাহন নির্বাচনকালীন এ নিষেধাজ্ঞার বাইরে থাকবে। এসব আদেশ অমান্য করলে তা আইনত দন্ডনীয় অপরাধ হিসেবে গণ্য হবে। এজন্য অভিযুক্তের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলেও ওই সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে।

Leave a Response