Saturday, October 24, 2020
উত্তরাঞ্চল

মান্দায় পল্লী বিদ্যুতের ভুতুড়ে বিল, গ্রাহকদের ভোগান্তি

145views

মান্দায় পল্লী বিদ্যুতের ভুতুড়ে বিল, গ্রাহকদের ভোগান্তি

মান্দা প্রতিনিধি: নওগাঁর মান্দায় পল্লী বিদ্যুতের ভুতুড়ে বিল নিয়ে চরম ভোগান্তির শিকার হয়েছেন অন্তত: ৫ শতাধিক গ্রাহক। ভুতুড়ে এ বিল সংশোধন করতে ওই সকল গ্রাহক রোববার সকাল থেকে মান্দা পল্লী সমিতির কার্যালয়ে হুমড়ি খেয়ে পড়েন। জুন মাসের বিল পরিশোধ করার পরও জুলাই মাসের বিলে তা সংযুক্ত করে দেয়ায় এ ভোগান্তির শিকার হন তারা।

গ্রাহকদের অভিযোগ, গত জুন মাসের বিল সময়মত পরিশোধ করা হয়েছে। এরপরও জুলাই মাসের বিলে সংযুক্ত করে দেয়া হয়েছে জুন মাসের বিল। পরিশোধকৃত বিল ও সদ্যপ্রাপ্ত বিল নিয়ে পল্লী বিদ্যুৎ অফিসে এলে নতুনভাবে বিল তৈরি করে দেয়া হচ্ছে। ইতোপূর্বে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির এই কার্যালয়ে একাধিকবার একই ঘটনা ঘটেছে বলেও তাদের অভিযোগ।

উপজেলার ফেটগ্রাম গ্রামের গ্রাহক নজরুল ইসলাম জানান, জুন মাসের ৫২৪ টাকার বিল সময়মত পরিশোধ করেছেন। জুলাই মাসের ২৮৯ টাকা বিলের সঙ্গে জুনমাসের ৫২৪ টাকা যোগ করে ৮১৩ টাকা বিল তার বাসায় পৌঁছে দেয় মান্দা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি কর্তৃপক্ষ। এ বিল দেখে তিনি হতভম্ব হয়ে পড়েন। পরে দুই বিলের কাগজ নিয়ে রোববার সকালে পল্লী বিদ্যুৎ কার্যালয় গিয়ে অভিযোগ দিলে পূর্বের বিলটি নিয়ে সংশোধিত বিলের কাগজ তার হাতে ধরিয়ে দেয়া হয়েছে। রোববার বেলা ১১টার দিকে মান্দা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির কার্যালয়ে গিয়ে দেখা গেছে অন্তত: অর্ধশতাধিক গ্রাহক বিল সংশোধনের জন্য লাইনে দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করছেন। এসব গ্রাহকদের অভিযোগ, জুন মাসের বিল পরিশোধ করার পরও পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির লোকজন ভুতুড়ে বিল দিয়ে তাদের হয়রানী করছে। এসময় উপজেলার বিলউথরাইল গ্রামের গ্রাহক সাহেব আলী, এনায়েতপুর গ্রামের আবু সায়েম, মাসুদ রানা ও আব্দুল কুদ্দুস, পারএনায়েতপুর গ্রামের আব্দুস সাত্তার, চকরাজাপুর গ্রামের দুলিনা বিবি, দাওয়াইল গ্রামের নুর মোহাম্মদ মন্ডল, পরানপুর গ্রামের মুনছের আলী ও আক্কাস আলী, কুসুম্বা গ্রামের জবির উদ্দিন ও রফিকুল ইসলামসহ আরও অনেকে জানান, একই ঘটনার শিকার হয়ে লাইনে দাঁড়িয়ে বিল সংশোধনের জন্য তারা অপেক্ষা করছেন।

এ বিষয়ে মান্দা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির বিলিং সুপার ভাইজার মোছা. মজিবুন্নাহার জানান, সফটওয়ার সমস্যার কারণে এ ত্রুটি হয়েছে। গ্রাহকরা যাতে আর ভোগান্তির শিকার না হন আগামিতে তা সতর্কভাবে দেখা হবে। মান্দা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির এজিএম এএসএম সুফিউল্লাহ সাদ জানান, বিষয়টি সম্পর্কে আমি অবহিত নই। তবে খতিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেব।

Leave a Response