Wednesday, October 28, 2020
উত্তরাঞ্চল

মান্দায় জমি নিয়ে বিরোধে খুন

203views

মান্দায় জমি নিয়ে বিরোধে খুন

murder 2মান্দা প্রতিনিধি: নওগাঁর মান্দায় জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে সাইফুল ইসলাম ওরফে শাহিনুর নামে একব্যক্তি খুন হওয়ায় চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে পরিবারের ৫ নারী সদস্য। পরিবারের উপার্জনক্ষম একমাত্র ব্যক্তি খুন হওয়ায় তছনছ হয়ে গেছে সাজানো-গোছানো একটি সংসার। আয়ের পথ বন্ধ হয়ে যাওয়ায় দিশেহারা হয়েছে পড়েছে পরিবারের সদস্যরা। আসামিদের হুমকির মুখে স্কুলে যেতে পারছে না ওই পরিবারের দুটি শিশু সন্তান। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার গনেশপুর ইউনিয়নের শ্রীরামপুর গ্রামে।

সরেজমিনে জানা গেছে, জমি সংক্রান্ত পারিবারিক বিরোধের জের ধরে গত ৩ জুলাই ভাতিজা জুবায়ের রহমান পলু ও তার পরিবারের সদস্যরা ধারালো বটি কুপিয়ে ও লোহার রড পিটিয়ে চাচা সাইফুল ইসলাম শাহিনুরকে গুরুতর জখম করে। মারপিটের এ ঘটনায় শাহিনুরের মেয়ে মৌসুমী আক্তার বাদি হয়ে জুবায়ের হোসেন, মঞ্জুয়ারা, জুলেখা বিবিসহ ৭ জনের বিরুদ্ধে মান্দা থানায় মামলা দায়ের করেন। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত ২৮ জুলাই রাতে বগুড়ার শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসাপাতালে মারা যান তিনি।

নিহতের স্ত্রী বেবী সুলতানা জানান, স্বামী শাহিনুরের কোনো চাষযোগ্য জমি নেই। স্বামীর শ্রমের বিনিময়ে উপার্জিত আয় দিয়েই পরিবারের ভরণ-পোষণ চলে আসছিল। হঠাৎ করে তিনি খুন হওয়ায় আয়ের পথ বন্ধ হয়ে গেছে। পরিবারে নেমে এসেছে চরম দুর্দিন। তিনি আরও বলেন, শাশুড়ি রহিমা বেওয়া, বড়মেয়ে মৌসুমী আক্তার, মেঝমেয়ে রুমি আক্তার ও ছোটমেয়ে সোনালী আক্তারকে নিয়ে তাদের সাজানো গোছানো সংসার ছিল। স্বামী খুন হওয়ায় তাদের ছোট্ট সংসারটি তছনছ হয়ে গেছে। নিহতের স্ত্রী আরও জানান, মেঝমেয়ে রুমি আক্তার সতিহাট কেটি উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ও ছোটমেয়ে সোনালী আক্তার শ্রীরামপুর-২ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণির শিক্ষার্থী। বাবা খুন হওয়ার পর আসামিদের অব্যাহত হুমকির মুখে দুইমেয়ে স্কুলে যেতে পারছে না। এ অবস্থায় তাদের লেখাপড়া বন্ধ হওয়ার উপক্রম হয়েছে। স্বামী হত্যাকান্ডের সঙ্গে জড়িত সকল আসামিদের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবি করেন তিনি।

মামলার বাদি নিহতের বড়মেয়ে মৌসুমী আক্তার জানান, দাদার কিছু সম্পত্তি চাচাতো ভাই জুবায়ের হোসেন পলু জোরপূর্বক ভোগদখল করে আসছিল। ওই সম্পত্তি ভাগ চাওয়াকে কেন্দ্র করে বাবা শাহিনুরের সঙ্গে জুবায়ের হোসেনের বিরোধ সৃষ্টি হয়। জের ধরে পরিকল্পিতভাবে জুবায়ের হোসেন ও তার পরিবারের সদস্যরা বাবা শাহিনুরকে খুন করেছে বলে অভিযোগ করেন তিনি। মামলার বাদি অভিযোগ করে বলেন, মারপিটের ঘটনায় দায়েরকৃত মামলাটি তুলে নেয়ার জন্য আসামিরা আমাকে অব্যাহতভাবে হুমকি দিয়ে আসছিল। মামলা তুলে না নিলে ছোট দুই বোনকে অপহরণ ও লাশ গুমসহ সাক্ষীদেরও হুমকি দিচ্ছে আসামিরা। বর্তমানে পরিবারের সদস্যরা চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন বলে দাবি করেন তিনি।

থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মাহবুব আলম জানান, মারপিটের ঘটনায় দায়েরকৃত মামলায় আসামিদের গ্রেফতার করে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছিল। এখন তারা জামিনে রয়েছে। ওই ঘটনায় গত ১৯ জুলাই আসামিদের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়েছে।

ওসি আরও বলেন, হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সাইফুল ইসলাম ওরফে শাহিনুরের মৃত্যুর পর বাদির নিকট থেকে পুনরায় আবেদন নেয়া হয়েছে।

Leave a Response