Saturday, October 24, 2020
কোটা সংস্কারের দাবিতে রাবিতে মানববন্ধন
টপ নিউজরাজশাহী

বীজ ডিলাররা প্রতারণা করলে ব্যবস্থা, টমেটো চাষের প্রস্ততি

492views

বীজ ডিলাররা প্রতারণা করলে ব্যবস্থা, রাজশাহীতে টমেটো চাষের প্রস্ততি

নিজস্ব প্রতিবেদক: টমেটোর রাজধানী খ্যাত গোদাগাড়ী তথা রাজশাহীতে টমেটো চাষের প্রস্তুতি নিচ্ছেন কৃষক। কিন্তু শুরুতেই টমেটোর বীজ নিয়ে শঙ্কায় তারা। প্রতিবছরই ভালমানের বীজ না পাওয়া এবং কিছু অসাধু ব্যবসায়ীর নিম্ন মানের বীজ সরবরাহের কারণে ক্ষতির মুখে পড়তে হয় কৃষকদের।

সরকার নির্ধারিত ডিলারদের বাইরের ব্যবসায়ীরা ইতোমধ্যেই এলাকায় বীজ সরবরাহ শুরু করেছেন। কিন্তু অতীতের তিক্ত অভিজ্ঞতার কারণে তাদের উপর ভরসা রাখতে পারছেন না চাষীরা। তবে কৃষি বিভাগ বলছে, এবার নির্ধারিত ডিলারের মাধ্যমে কৃষকদের টমেটোর বীজ সরবরাহ করা হবে।

ইতোমধ্যে রাজশাহীর টমেটো চাষিরা বীজ তলার জন্য জমি প্রস্তুত শুরু করেছেন। অনেকেই হাইব্রিড জাতীয় টমেটো বীজ তলায় ফেলেছেন। লাভের আশায় কৃষকরা মুলত প্রতিবছর আগাম জাতের টমেটো চাষ করে থাকেন। তবে এবারো টমেটোর বীজ নিয়ে দুশ্চিন্তায় রয়েছেন কৃষকরা। কারণ প্রতিবছর বীজের কারণে চাষিদের ব্যাপক লোকসানের মুখে পড়তে হচ্ছে। তাই এবার তারা কোন বীজ রোপন করবেন তা নিয়ে চরম উৎকণ্ঠায় রয়েছেন।

তবে কৃষি বিভাগ থেকে বলা হচ্ছে এবার নির্ধারিত ডিলারের মাধ্যমে কৃষকদের টমেটোর বীজ সরবরাহ করা হবে। কৃষকরা যাতে প্রতারণার শিকার না হন সেজন্য কৃষি বিভাগ থেকে সচেতনতামুলক পরামর্শ দেয়া হচ্ছে।

রাজশাহী কৃষি বিভাগের উপপরিচালক দেবঢালি দুলাল জানান, গত মওসুমে রাজশাহীতে প্রায় সাড়ে চার হাজার হেক্টর জমিতে টমেটো চাষ হয়েছিল। টমেটোর রাজধানী গোদাগাড়ী উপজেলায় টমেটো চাষ হয়েছিল প্রায় আড়াই হাজার হেক্টর জমিতে। তিনি জানান, এবারো রাজশাহীতে টমেটোর লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে গত বছরের সম পরিমাণ প্রায় সাড়ে চার হাজার হেক্টর। তবে এর বেশি জমিতে এবার টমেটো চাষের সম্ভাবনা রয়েছে। বীজতলার চারা ও কৃষকদের আগ্রহের উপর নির্ভর করে এবার এবার কতটুকু জমিতে টমেটো চাষ হবে তা নিশ্চিত করা যাবে।

তিনি জানান রাজশাহীতে প্রায় শতাধিক ডিলার টমেটোর বীজ সরবরাহ করে থাকেন। এরমধ্যে ৫০জন রয়েছেন গোদাগাড়ীতে। আর এসব ডিলার কৃষি অফিস থেকে অনমোদিতভাবেই বীজ সরবরাহ করেন। এবার আগে থেকেই ডিলারদের সাথে কৃষি বিভাগ যোগাযোগ করে কৃষকদের বীজ দিচ্ছেন। ফলে রাজশাহীর টমেটোর চাষিরা উন্নত মানের বীজ পাবে এমনটাই আশা করছেন তিনি। তিনি আরো জানান, যদি কোনো ডিলার এবার কৃষকদের মাঝে নিম্ন মানের বীজ সরবরাহ করেন তাহলে তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। একই সাথে তার ডিলারশীপ বাতিল করা হবে।

এদিকে টমেটোর মওসুমকে ঘিরে ইতোমধ্যে কিছু অসাধু ব্যবসায়ী কৃষকদের মাঝে বীজ সরবরাহ শুরু করেছেন। উন্নত মানের বীজ বলে কৃষকদের মাঝে তারা বীজ সরবরাহ করছেন। এতে এবারো কৃষকরা প্রতারিত হবে এমনটাও মনে করা হচ্ছে। গোদাগাড়ী এলাকায় ইতোমধ্যে চাষিরা বীজতলা তৈরি ও বপনের কাজ শুরু করেছেন। কিছু কিছু কৃষকের বীজতলায় চারা গজাতেও শুরু করেছে। এছাড়াও কৃষকরা টমেটো চাষের জন্য জমির ধান কাটতে শুরু করেছেন।

মওসুমের আগে যেনো তারা টমেটো চাষ সম্পন্ন করতে পারেন এজন্য গোদাগাড়ী তানোর এলাকায় চলছে ধান কাটা উৎসব। অনেক কৃষক জমির ধান কেটে চাষ শুরু করে দিয়েছেন। মুলত যেসব কৃষক ধান কেটে জমি তৈরি শুরু করেছেন তারা আগাম জাতের হাইব্রিড জাতের টমেটো চাষ করবেন। তাদের বীজ তলা ও চারা প্রায় রোপনের উপযোগি হয়ে উঠেছে। আর হয়তো সপ্তাহ খানেকের মধ্যে এসব কৃষক জমিতে চারা রোপন কাজ শুরু করবেন।

গোদাগাড়ী এলাকার কৃষকদের সাথে কথা বলে জানা যায়, গোদাগাড়ী উপজেলা ধানের পর টমেটোর উপর নির্ভরশীল। দেশের ৭৫ভাগ টমেটো উৎপাদন হয় রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলায়। যার কারণে গোদাগাড়ী টমেটোর রাজধানী নামে খ্যাত। কিন্তু গত কয়েকবছর টমেটো চাষ করে কৃষকরা তেমন লাভবান হননি। কারণ টমেটো চাষের সময় বীজের প্রতিবন্ধকতা, ন্যায্য দাম না পাওয়া, পোকার আক্রমন, যানবাহনের স্বল্পতা, সংরক্ষনের অভাবসহ নানা প্রতিবন্ধকতায় কৃষকদের বড় ধরনের লোকসানের মুখে পড়তে হয়েছে। এবার তারা কৃষি বিভাগ থেকে সহযোগিতা নিয়ে চাষ শুরু করছেন।

এখন পর্যন্ত রাজশাহী কৃষি বিভাগ তাদের সব ধরনের সহযোগিতা করছেন। এভাবে শেষ পর্যন্ত সহযোগিতা অব্যাহত থাকলে হয় তো এবার তারা আলোর মুখ দেখবেন। তবে কৃষকদের দাবি রাজশাহীতে দেশের ৭৫ভাগ টমেটো উৎপাদন হলেও এখানে টমেটো রক্ষণাবেক্ষণের জন্য কোনো হিমাগার নেই। আর হিমাগার না থাকার কারণে বিপুল পরিমান টমেটো নষ্ট হয়ে যায় প্রতিবছর। কৃষকদের দাবি রাজশাহীর কৃষকদের দিকে লক্ষ্য রেখে অতিসত্বর হিমাগার নির্মাণ করা হোক।

Leave a Response