Friday, October 23, 2020
সারাদেশ

বাঘায় পঁচা মাংস বিক্রির অভিযোগ

11views

বাঘায় পঁচা মাংস বিক্রির অভিযোগ

বাঘা প্রতিনিধি: রাজশাহীর বাঘায় রুগ্ন-অসুস্থ গরুর পঁচা ফ্রিজে রাখা মাংস বিক্রির অভিযোগ পাওয়া গেছে। শুক্রবার উপজেলার বাঘা বাজারে মিলন হোসেন নামের এক মাংস ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে এ অভিযোগ পাওয়া যায়।

জানা যায়, উপজেলার তেপুকুড়িয়া এলাকার খোরসেদ আলমের ছেলে পলাশ আলি তার মাতার কুলখানি অনুষ্ঠানের জন্য এ দিন সকালে উপজেলার গাঁওপাড়া গ্রামের আলতাব হোসেন (কসাই ) এর ছেলে মিলন (কসাই) এর নিকট থেকে ৪০ (চল্লিশ) কেজি গরুর মাংস ক্রয় করেন। তিনি ক্রয়কৃত মাংস বাসায় নিয়ে দেখেন, প্রায় ১৫ (পনের)কেজি পঁচা ও দুর্গন্ধযুক্ত মাংস রয়েছে। তিনি তৎক্ষণাৎ ওই মাংস বিক্রেতাকে ফেরত দিতে আসেন। এ সময় ক্রেতা ও বিক্রেতার মাঝে উত্তেজনার সৃষ্টি হলে বাঘা উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মোকাদ্দেস আলী ও হাট ইজারাদার পৌর আ.লীগের সাধারন সম্পাদক মামুন হোসেন ক্রেতাকে টাকা ফেরৎ দেয়ার মাধ্যমে উভয়ের মধ্যে সমস্যার সমাধান করে দেন।

এ ঘটনায় মাংস ব্যবসায়ি মিলন বলেন, পঁচা বা নষ্ট মাংস না, গত হাটে বেঁচে যাওয়া কিছু মাংস ফ্রিজে রাখা ছিল। সেই মাংস মিশ্রন করায় ক্রেতা মাংস ফেরত দিয়েছে। আমি তাকে টাকা ফেরত দিয়ে দিয়েছি। এ বিষয়ে বাঘা মাংস বাজারে উপস্থিত কয়েকজন অভিযোগ করে বলেন, অনৈতিক কর্মকান্ড চালিয়ে কতিপয় মাংস ব্যবসায়ী প্রায়শই খাওয়ার অনুপোযোগী অসুস্থ পশু জবাই করে মাংস বিক্রি করেন। এসব মাংস বিক্রির জন্য অনেকেরই ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে কিংবা বাসা বাড়িতে ফ্রিজ রয়েছে।

উল্লেখ্য, অভিযুক্ত মিলন পঁচা, নষ্ট ও খাওয়ার অনুপযোগী মানহীন মাংস বিক্রির অভিযোগে ইতিপূর্বে একাধিকবার ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে জরিমানা দিয়েছেন। আজকেও, বিষয়টি জানাজানির ভয়ে অভিযুক্ত মিলন পঁচা ও নষ্ট মাংসগুলো দ্রুত সরিয়ে ফেলেন। এ বিষয়ে সহকারি কমিশনার (ভূমি) কামাল হোসেন বলেন, খবর পেয়ে দ্রুত অভিযুক্ত ব্যবসায়ির দোকান পরিদর্শনে যাই। সেখানে পঁচা বা নষ্ট মাংস না পাওয়ায় তার বিরুদ্ধে কোন আইনি ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। তবে কেউ যেন খাওয়ার অনুপযোগী মাংস বিক্রয় না করে সে বিষয়ে সকল ব্যবসায়ীদের কঠোরভাবে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এছাড়াও কোন অসাধূ ব্যবসায়ী ফ্রিজআপ মাংস যাতে বিক্রয় করতে না পারে সে বিষয়ে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

Leave a Response