Thursday, October 22, 2020
টপ নিউজরাজনীতি

প্রচারের শেষ দিনে বুলবুলের ব্যস্ততা

287views

প্রচারের শেষ দিনে বুলবুলের ব্যস্ততা

প্রচারের শেষ দিনে বুলবুলের ব্যস্ততানিজস্ব প্রতিবেদক: বৃষ্টি উপেক্ষা করে প্রচার প্রচারণায় ব্যস্ত সময় পার করেছেন বিএনপি ও ২০দলীয় মেয়র প্রার্থী মোহাম্মদ মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল। গতকাল শনিবার সকালে নগরীর জেলগেট থেকে গণসংযোগ শুরু করে সিপাহীপাড়া, ফায়ার সার্ভিসের মোড়, সাহেব বাজার এলাকার মনিচত্বর, কাঁচা বাজার, মাছ বাজার, মাস্টারপাড়া পাইকারী বাজার ও সোনাদীঘির মোড়ে গণসংযোগ করেন। গণসংযোগকালে বুলবুল বলেন, ধানের শীষের গণজোয়ার দেখে সরকার দলীয় প্রার্থী নিশ্চিৎ পরাজয় জেনে ভীত হয়ে ভোট কারচুপি ও জাল ভোট প্রদান করার জন্য ঢাকা থেকে অতিরিক্ত ব্যালট পেপার আনার ষড়যন্ত্র করছে। এছাড়াও রাজশাহীতে নির্বাচনকে ঘিরে কালো গাড়ির দৌরাত্ম বৃদ্ধি পেয়েছে। প্রায় ১০টি কালো গ্লাস ওয়ালা গাড়ী সিটিতে ঘোরাফেরা করছে। ট্রাফিক দেখেও না দেখার ভান করছে। তিনি আরো বলেন, সম্পূর্ন অবৈধভাবে নেতাকর্মী সহ নারী নেত্রীদের গ্রেফতার করছে পুলিশ। গণগ্রেফতার ও পুলিশি অত্যাচার বন্ধ করতে নির্বাচন কমিশনের নিকট তিনি দাবী জানান।

বুলবুল আরো বলেন, নির্বাচন কমিশন ও পুলিশ আওয়ামী লীগের আজ্ঞাবহ হয়ে কাজ করছে। এই নির্বাচন কমিশন কোনভাবেই সুষ্ঠু নির্বাচন করতে পারবেনা বলে তিনি আশংকা করেন। সুষ্ঠু নির্বাচনের স্বার্থে ২৮ তারিখের মধ্যে সেনা মোতায়েনের জন্য পুণরায় জোর দাবী জানান তিনি। তিনি আরো বলেন, বিজিবি মাঠে থাকলেও আওয়ামী লীগের অত্যাচারে সঠিকভাবে কাজ করতে পারবে না। নির্বাচনের দিন সব ধরনের বাধা ও অনিয়ম বিএনপি কঠোর হাতে দমন করবে। প্রয়োজনে রাজশাহীকে অচল করে দেয়া হবে বলে তিনি হুঁশিয়ারী দেন। তিনি আরো বলেন, সরকার দলীয় প্রার্থীর নিকট পোলিং অফিসার ও প্রিজাইডিং অফিসারদের গেজেট পাঠালেও বিএনপিকে গতকাল পর্যন্ত গেজেট দেয়া হয়নি। ২৮তারিখ বেলা ১টার মধ্যে গেজেট প্রদান করার জন্য নির্বাচন কমিশনের নিকট দাবী জানান তিনি। তিনি বলেন, ২০ দলীয় জোটের সবাই ধানের শীষের পক্ষে ঐক্যবদ্ধ আছে। পুলিশ বিভাগ দাঁড়িওয়ালা লোকদের দেখলেই জঙ্গি বলে আটক করছে। এই আটকের ভয়ে তারা প্রকাশ্যে আসছে না বলে তিনি উল্লেখ করেন।

বুলবুল বলেন, চলমান উন্নয়ন প্রকল্পগুলো সঠিকভাবে বাস্তবায়ন, সিটি কর্পোরেশনের আন্ডারে আরো শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও হেলথ কেয়ার সেন্টার নির্মান, পথ শিশুদের জন্য শিক্ষা ও স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিৎ করণ এবং নগরবাসীর চলাচলের সুবিধার্থে আরো ১২-১৪টি বড় রাস্তা নির্মান করা হবে। এছাড়াও জলাবদ্ধতা নিরসনে ইতোমধ্যে বড় ড্রেন নির্মান করা হয়েছে। রাস্তার সাথে আরো বড় ড্রেন নির্মান করা হবে বলে তিনি উল্লেখ করেন। কর্মজীবি মহিলাদের জন্য হোস্টেল, সিনিয়র সিটিজেনদের জন্য সামাজিক নিরাপত্তাবিধান করা ও সর্বোপরি নগরীকে একটি পর্যটন নগরীতে পরিণত করে গ্রিন সিটি, ক্লিনসিটি, হেলদি সিটি, এডুকেশন সিটি ও স্টার্ম সিটির সুনাম অব্যাহত রাখা হবে বলে তিনি জানান।

গণসংযোগে উপস্থিত ছিলেন বিএনপি চেয়ারপার্সনের অন্যতম উপদেষ্টা, সাবেক মেয়র ও সংসদ সদস্য মিজানুর রহমান মিনু, পুঠিয়া দূর্গাপুরের সাবেক সংসদ সদস্য ও বিএনপি কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য এ্যাডভোকেট নাদিম মোস্তফা, বিএনপি কেন্দ্রীয় কমিটির ত্রান ও পুনর্বাসন বিষয়ক সহ-সম্পাদক ও মহানগর বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট শফিকুল হক মিলন, বোয়ালিয়া থানা বিএনপি সভাপতি সাইদুর রহমান পিন্টু, তানোর পৌরসভার মেয়র মিজানুর রহমান, মহানগর যুবদলের সভাপতি আবুল কালাম আজাদ সুইট, জেলা যুবদলের সভাপতি মোজাদ্দেদ জামানী সুমন, সাধারণ সম্পাদক শফিকুল আলম সমাপ্ত, মহানগর সেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ আবেদুর রেজা রিপন, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক ওয়ালিউজ্জামন পরাগ, মহানগর ছাত্রদলের সভাপতি আসাদুজ্জামান জনি, সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম রবি প্রমুখ।

এদিকে শনিবার বিকেলে বিএনপি ও ২০দলীয় মেয়র প্রার্থী মোহাম্মদ মোসাদ্দেক হোসেনের ধানের শীষের পক্ষে শ্রাবনের বৃষ্টি উপেক্ষা করে নেতাকর্মী ও সিনিয়র নেতৃবৃন্দ গণপদযাত্রা করেন। তারা মালোপাড়াস্থ পার্টি অফিস থেকে শুরু করে সাহেব বাজার দিয়ে বিন্দুর মোড় হয়ে রেলওয়ে ষ্টেশনের গিয়ে পথসভা করেন। পুঠিয়া-দুর্গাপুরের সাবেক সংসদ সদস্য ও বিএনপি কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য এ্যাডভোকেট নাদিম মোস্তফা, মহানগর বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট শফিকুল হক মিলন পথসভায় উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Response