Saturday, October 24, 2020
সারাদেশ

নির্বাচনে অংশ নিয়ে জনপ্রিয়তার প্রমাণ দিন: কাদের

198views

নির্বাচনে অংশ নিয়ে জনপ্রিয়তার প্রমাণ দিন: কাদের

রাজশাহী সংবাদ ডেস্ক: আওয়ামী লীগ, না বিএনপিকে বেশি জনপ্রিয়, জাতীয় নির্বাচনে অংশ নিয়ে তা প্রমাণের জন্য বিএনপির প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। গতকাল বুধবার নারী রাজনীতিবিদদের এক কর্মশালার উদ্বোধন অনুষ্ঠানে ওবায়দুল কাদের এ আহ্বান জানান। খালেদা জিয়াকে ছাড়া বিএনপি জাতীয় নির্বাচনে অংশ নেবে কি না, তা তফসিল ঘোষণার পরই বোঝা যাবে বলেও উল্লেখ করেন তিনি। আওয়ামী লীগের গবেষণা প্রতিষ্ঠান সেন্টার ফর রিসার্চ অ্যান্ড ইনফরমেশন (সিআরআই) এবং ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনাল ‘রাজনৈতিক নেতৃত্বে নারীর অগ্রযাত্রা’ শীর্ষক এক সম্মেলনের আয়োজন করে। রাজধানীর একটি হোটেলে দুদিনব্যাপী এই সম্মেলনের উদ্বোধন করেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। সারা দেশ থেকে আসা আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নারী রাজনীতিবিদরা এই সম্মেলনে অংশ নিচ্ছেন। আগামী নির্বাচনে নারী এবং তরুণ ভোটাররাই জয়-পরাজয় নির্ধারণ করবে উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, অক্টোবরে ইলেকশন কমিশন বলছে সিডিউল ডিক্লেয়ার করবে। তখন দেখা যাবে, এই কথার মানে কী। তারা কি তাঁকে (খালেদা জিয়া) ছাড়া নির্বাচনে যাবে কি যাবে না আর তিনি তখন কোথায় থাকবেন, সেটা তো জানেন আদালত। আমরা জানি না। তাঁকে দন্ড দিয়েছেন আদালত, মুক্তি দিতে পারেন আদালত। আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, বিএনপি নিজেরা জনবিচ্ছিন্ন হয়ে আছে বলেই তারা মনে করে যে সবাই বুঝি জনবিচ্ছিন্ন হয়ে আছে। কে জনবিচ্ছিন্ন, তা খুলনা ও গাজীপুর সিটি নির্বাচনে প্রমাণিত হয়েছে বলেও জানান তিনি। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, সরকার জনবিচ্ছিন্ন না জনসমর্থনপুষ্ট, তার প্রমাণ সাম্প্রতিক খুলনা সিটি, তার প্রমাণ গাজীপুর সিটি, আরো যদি প্রমাণ চান সামনে তিনটি সিটি, এর পরে জাতীয় নির্বাচন আসুক পরীক্ষা নিতে পারেন কে বেশি জনপ্রিয়। গাজীপুরে শিক্ষা হয়নি? খুলনায় শিক্ষা হয়নি? আর কত শিক্ষা হবে?’ রাজনীতির মাঠে বাধা এলে দমে না গিয়ে আরো উদ্যমী হয়ে সামনে এগিয়ে যাওয়ার জন্য নারী রাজনীতিবিদদের প্রতি আহ্বান জানান কাদের। এদিকে, একদিনের জন্যও বিএনপি ক্ষমতায় এলে দেশ সন্ত্রাসের লীলাভ‚মিতে পরিণত হবে বলে মন্তব্য করেন ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, আমরা একদিনের জন্য বিএনপির হাতে ক্ষমতা ছেড়ে দিলে বাংলাদেশ রসাতলে যাবে। একদিনেই দেশে রক্তের নদী বয়ে যাবে, একদিনেই দেশ সন্ত্রাসের লীলাভুমি হয়ে যাবে, পুরনো হাওয়া ভবন পুরনো খাওয়া ভবনে রূপান্তর হবে। গত মঙ্গলবার বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের দেওয়া বক্তব্যের সমালোচনা করে তিনি বলেন, আগামি জাতীয় নির্বাচনে আসুন, জনপ্রিয়তা যাচাই হবে। জনগণ আমাদের ভোট না দিলে আমরা তো সরকারে আসতে পারবো না। কাজেই জাতীয় নির্বাচনে অংশ নিয়ে পরীক্ষা নিতে পারেন। গাজীপুরে শিক্ষা হয়নি, খুলনায়ও শিক্ষা হয়নি, আর কত শিক্ষা চান? ‘খালেদা ছাড়া বিএনপি নির্বাচনে যাবে না’ এমন বক্তব্যের জেরে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক কাদের বলেন, বিএনপির কথার সঙ্গে কাজের মিল তাদের নেই। অক্টোবরে নির্বাচনের শিডিউল ঘোষণা হবে, দেখা যাবে এই কথার মানে কী? তাকে (খালেদা জিয়া) ছাড়া নির্বাচনে যাবেন কি, যাবেন না। তাকে দন্ড দিয়েছে আদালত, মুক্তিও দিতে পারে আদালত। তাদের কথায় মনে হয় আওয়ামী লীগই যেন তাকে আটকে রেখেছে, শেখ হাসিনা আটকে রেখেছেন, যোগ করেন তিনি। বিএনপি নেতাদের উদ্দেশ্য করে ওবায়দুল কাদের বলেন, আপনারা বলেছেন ইসির সচিব আওয়ামী লীগ দলীয় অফিসে যান। আমি চ্যালেঞ্জ করছি, ইলেকশন কমিশন সচিব কোনো দিনও আওয়ামী লীগ অফিসে যাননি। এটা তাদের সাজানো, বানোয়াট, মিথ্যা কথা এবং রাজনৈতিক উদ্দেশ্য প্রণোদিত। এটা তাদের প্রমাণ করতে হবে। তা না হলে এর জবাব দিতে হবে।

Leave a Response