Thursday, October 22, 2020
সারাদেশ

নাটোরে সড়ক দুর্ঘটনায় মামলা, দুর্ঘটনা রোধে সমাবেশ

207views

নাটোরে সড়ক দুর্ঘটনায় মামলা, দুর্ঘটনা রোধে সমাবেশ

নাটোর প্রতিনিধি: নাটোরের নাটোর-পাবনা মহাসড়কে লালপুর উপজেলার কদিমচিলানে বাস-লেগুনা সংঘর্ষে হতাহতের ঘটনায় বাস চালক সহ ৭জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। হাইওয়ে পুলিশের এএসআই ইউসুফ আলী বাদী হয়ে লালপুর থানায় মামলাটি দায়ের করেন। লালপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম মামলা দায়েরের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এদিকে বাসের এক হেলপারকে বগুড়া থেকে আটক করা হয়েছে।

নিহতদের মধ্যে ১৪ জনের মৃতদেহ তাদের পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। তারা হলেন একই পরিবারের পাবনার মুলাডুলির মন্টু বিশ্বাসের ছেলে প্রত্যয় বিশ্বাস, মেয়ে স্বপ্না বিশ্বাস ও স্ত্রী আদুরী বিশ্বাস, লেগুনার চালক নীলফামারীর আব্দুর রহিম, হেল্পার সৈয়দপুরের রাজা, লেগুনার যাত্রী নাটোরের বড়াইগ্রামের নারায়ণপুর গ্রামের আবু তাহেরের স্ত্রী রজুফা বেগম ও একই গ্রামের রুপচাঁদের স্ত্রী শেফালী বেগম, বড়াইগ্রামের জামাইদিঘার লজেনা বেগম, পাবনার ঈশ্বরদীর পাকশী এলাকার আব্দুস সোবহান, টাঙ্গাইলের গোপালপুরের রোকন উদ্দিন ও পাবনার ঈশ্বরদীর মীর কামারী গ্রামের শাপলা খাতুন ও সুরাইয়া খাতুন, পাবনার মুলাডুলির জহুরা খাতুন ও সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ার বাগমারা গ্রামের আবু রায়হান । নিহত অপর ব্যক্তির পরিচয় জানাতে পারেনি পুলিশ। তার মৃতদেহ আঞ্জুমানে মফিদুল ইসলামের কাছে হস্তান্তর করা হবে বলে পুলিশ জানিয়েছে।

এদিকে নাটোরের বড়াইগ্রামে নিরাপদ সড়ক গড়তে ও দুর্ঘটনা প্রতিরোধে জন সচেতনতামুলক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। রোববার দুপুরে উপজেলার বনপাড়া পৌরসভার সামনে এ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। বড়াইগ্রাম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আনোয়ার পারভেজের সভাপতিত্বে এ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন নাটোর-৪ আসনের সংসদ সদস্য অধ্যাপক আব্দুল কুদ্দুস, নাটোর-১ আসনের সংসদ সদস্য আবুল কালাম আজাদ, জেলা প্রশাসক শাহিনা খাতুন, পুলিশ সুপার বিপ্লব বিজয় তালুকার, হাইওয়ে পুলিশের বগুড়া অঞ্চলের পুলিশ সুপার মোস্তাফিজুর রহমান, লালপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম প্রমুখ।

সমাবেশ থেকে মহাসড়কে দূর্ঘটনা রোধ, শৃংখলা ফিরিয়ে আনা, ফিটনেস বিহীন ও অবৈধ মোটরযান চলাচল রোধ ও লাইসেন্স বিহীন চালকদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করার ঘোষণা দেন। তারা বলেন সবাইকে আইন মেনে চলতে হবে। চালকদের সতর্ক হয়ে গাড়ি চালাতে হবে। নতুবা কোন দূর্ঘটনাই রোধ করা যাবে না। আর এতে প্রাণহানির ঘটনা ঘটতেই থাকবে। পরে মহাসড়কে লেগুনা, থ্রি-হুইলার, ব্যাটারী চালিত রিক্সা ও অটোরিক্সা সহ সকল অবৈধ যানবাহন চলাচল বন্ধে অভিযান শুরু করা হয় মহাসড়কের বিভিন্ন পয়েন্টে। পুলিশ সুপার বিপ্লব বিজয় তালুকদার নিজে উপস্থিত থেকে অভিযান পরিচালনা করেন।

হাইওয়ে পুলিশের বগুড়া অঞ্চলের পুলিশ সুপার মোস্তাফিজুর রহমান জানান, মহাসড়কে অবৈধ যানবাহন চলাচল বন্ধে আপোষহীন থাকবে পুলিশ। তবে শুধু অভিযান দিয়ে দূর্ঘটনা রোধ করা যাবে না। এজন্য সকলকে সচেতন হয়ে পুলিশকে সহযোগিতা করতে হবে। তিনি আরো জানান, শনিবারের দূর্ঘটনার বিষয়ে তদন্ত প্রতিবেদন পাওয়ার পর তা আমলে নিয়ে পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে। জেলা প্রশাসক শাহিনা খাতুন জানান, দুর্ঘটনার নিহতদের দাফন কাজে সহায়তার জন্য তাদের পরিবারকে ২০ হাজার টাকা ও আহতদের চিকিৎসা সহযোগিতার জন্য তাদের পরিবারের কাছে ১০ হাজার টাকা করে হস্তান্তর করা হয়েছে। এছাড়া ঘটনার তদন্তে গঠিত কমিটি প্রতিবেদন দেওয়ার পর তা আমলে নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এদিকে, নাটোরের লালপুরের কদমচিলানে বাস-লেগুনা সংঘর্ষে ১৫ জন নিহতের ঘটনায় আব্দুস সামাদ (৩৫) নামে বাসের হেলপারকে আটক করেছে বগুড়ার ডিবি পুলিশ। রোববার বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে বগুড়া সদর থানার পলাশবাড়ি এলাকায় তার ভাড়া বাসা থেকে তাকে আটক করা হয়। সে বগুড়া সদর থানার গোকুল পশ্চিমপাড়া এলাকার আব্দুল বাড়ির ছেলে। সে চ্যালেঞ্জার বাসের হেলপার। বগুড়া সদর পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ শেখ ফরিদ উদ্দিন বাস হেলপার আব্দুস সামাদকে আটকের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, তাকে নাটোরে পাঠানো হচ্ছে।

Leave a Response