Saturday, October 24, 2020
টপ নিউজরাজনীতি

জনগণ বিপুলভাবে নৌকার পক্ষে রায় দেবে : লিটন

236views

জনগণ বিপুলভাবে নৌকার পক্ষে রায় দেবে : লিটন

জনগণ বিপুলভাবে নৌকার পক্ষে রায় দেবে-লিটননিজস্ব প্রতিবেদক: রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত ও মহাজোট সমর্থিত মেয়র প্রার্থী এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন বলেছেন, ‘নৌকার পক্ষে গণজোয়ার সৃষ্টি হয়েছে। আমরা আশা করছি জনগণ বিপুলভাবে নৌকার পক্ষে রায় দেবে, রাজশাহীতে ইতিহাস সৃষ্টি হবে।’ শুক্রবার জুমার নামাজ শেষে নির্বাচনী গণসংযোগের সময় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন। খায়রুজ্জামান লিটন আরো বলেন, ‘আমি আগেও বলেছি, এখনো বলছি নির্বাচনে সেনা মোতায়নের মতো কোনো পরিবেশ হয়নি। তাই সেনা মোতায়নের প্রয়োজন নেই। তারপরও যদি নির্বাচন কমিশন মনে করে, মোতায়ন করতে পারে, সেটি তাদের ব্যাপার।’

বিএনপির ঢালাও মিথ্যাচারের ব্যাপারে খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, ‘আনুষ্ঠানিক প্রচারণার প্রথম দিন থেকেই বিএনপির প্রার্থী মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল ও বিএনপি নেতাকর্মীরা মিথ্যাচার করে আসছে। আমরা জানতাম যে নির্বাচনের শেষ দিন পর্যন্ত তারা মিথ্যাচার করবে, তাই হচ্ছে। তারা ভোট ডাকাতির কথা বলছে। ভোট ডাকাতির ইতিহাস তো তারাই সৃষ্টি করেছে। মাগুরায় ভোট ডাকাতি হয়েছিল জিয়াউর রহমানের আমলে। আমাদের ভোট ডাকাতির প্রয়োজন নেই। কারণ আওয়ামী লীগ জনগণের দল, জনগণকে নিয়ে আমরা চলি। জনগণের ভোটে আমরা বিজয়ী হবো। তিনি আরো বলেন, জামায়াত-শিবিরের যদি অরাজনৈতিক তৎপরতা না হয়। তাহলে নির্বাচন স্বচ্ছ ও সুষ্ঠু না হওয়ার কোনো কারণ নেই। শুক্রবার দুপুরে নগরীর জাহাজঘাট জামে মসজিদে পবিত্র জুমার নামাজ আদায় করেন আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী খায়রুজ্জামান লিটন। নামাজ শেষে জাহাজঘাট, ধরমপুর, খোজাপুর ও তালাইমারি মোড়ে গণসংযোগ করেন তিনি। এ সময় তাঁর সঙ্গে স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে, শুক্রবার বিকেলে সাহেব বাজার, বড়কুটি, কুমারপাড়া, রাণীবাজারসহ আশাপাশের এলাকায় গণসংযোগ ও পথসভা করেন লিটন। নির্বাচনী পথসভায় আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, গত ৫ বছর রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ছিলেন বিএনপির নেতা মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল। ৫ বছর তিনি রাজশাহীর কোনো উন্নয়ন কাজ করতে পারেননি। এ সময় সারাদেশ এগিয়ে গেলেও ব্যর্থ ও অযোগ্য মেয়রের কারণে পিছিয়ে গেল রাজশাহী। আর পিছিয়ে যেতে না চাইলে নৌকা প্রতীকে ভোট দিয়ে আমাকে জয়যুক্ত করুন। আমি নির্বাচিত হলে রাজশাহীর উন্নয়ন বুঝে নিবেন। আমি যা পারি তাই বলে, যা পারিনি তা বলি না। আমি নির্র্বাচিত হলে এক লাখ ছেলে-মেয়ের কর্মসংস্থান হবে, ঘরে ঘরে গ্যাস সংযোগ পাবেন, নতুন নতুন সরকারি স্কুল-কলেজ হবে, কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করবো, তিনটি ফ্লাওভার ব্রীজ করতে চাই। এছাড়া নগরীর যত উন্নয়ন দরকার সব করা হবে। এজন্য সবার সহযোগিতা প্রয়োজন।

পথসভায় খায়রুজ্জামান লিটন আরো বলেন, রাজশাহীবাসী পাঁচ বছর ধরে উন্নয়ন বঞ্চিত হওয়ায় বিএনপির বুলবুলের কাছ থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছেন। আমি গণসংযোগে যেখানে যাচ্ছি, সেখানে ব্যাপক সাড়া পাচ্ছি। দলমত নির্বিশেষে সব শ্রেণিপেশার মানুষ নৌকার পক্ষে ঐক্যবদ্ধ হয়েছেন। রাজশাহীর উন্নয়নের জন্যে আগামী ৩০ জুলাই স্বাধীনতা ও উন্নয়নের প্রতীক নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে বিপুল ভোটে আমাকে মেয়র নির্বাচিত করবে বলে আশা করছি।

Leave a Response