Wednesday, October 21, 2020
টপ নিউজরাজনীতি

জনগণের মুখোমুখী চার মেয়র প্রার্থী সমৃদ্ধ নগরী গড়ার অঙ্গীকার

188views

জনগণের মুখোমুখী চার মেয়র প্রার্থী সমৃদ্ধ নগরী গড়ার অঙ্গীকার

নিজস্ব প্রতিবেদক: নির্বাচনী আচরণবিধি মেনে অবাধ ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচনে সব ধরণের সহায়তা ও নির্বাচিত হলে রাসিককে দুর্নীতিমুক্ত করার প্রত্যয় ব্যক্ত করে লিখিত ১৩দফা অঙ্গীকারনামায় স্বাক্ষর করেন জনগণের মুখোমুখি অনুষ্ঠানে উপস্থিত রাজশাহী সিটির চার মেয়র প্রার্থী। সুজন-সুশাসনের জন্য নাগরিক রাজশাহী জেলা ও মহানগর কমিটির উদ্যোগে শনিবার সকাল ১১টার দিকে নগরীর মুনলাইট গার্ডেন এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। সুজন রাজশাহী মহানগর কমিটির সভাপতি পিয়ার বক্স এর সভাপতিত্বে এবং সুজন কেন্দ্রীয় সমন্বয়কারী দিলীপ কুমার সরকার এর সঞ্চালনায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন সুজন রাজশাহী জেলা কমিটির সভাপতি সফিউদ্দিন আহমেদ। জাতীয় সংগীতের মধ্যদিয়ে শুরু হওয়া অনুষ্ঠানের শুরুতেই সিটি কর্পোরেশনের নাগরিকরা মেয়র প্রার্থীদের কাছে তাদের প্রত্যাশার কথা জানান। অনুষ্ঠানের এক পর্যায়ে দর্শক সারি থেকে গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জোনায়েদ সাকী উপস্থিত ভোটার ও প্রার্থীদের উদ্দেশ্যে শান্তিপূর্ণ ও অবাধ নির্বাচন আয়োজনের লক্ষ্যে নির্বাচন কমিশনের প্রতি অনুরোধ জানান। মেয়রপ্রার্থীদের মধ্যে কে আগে বা পরে বক্তব্য প্রদান করবেন তা লটারীর মাধ্যমে নির্ধারণ করা হয়।

অনুষ্ঠানে বিএনপি মেয়র প্রার্থী মোহাম্মদ মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল ভোটারদের উদ্দেশ্যে বলেন, আমাদের অঙ্গীকার করতে হবে আমার ভোট আমি দেবো, যাকে খুশি তাকে দেবো ও জনগণের ভোট যারা দখল করতে চায় তাদের বিরুদ্ধে আমাদের ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে। বিগত সময়ে মেয়র থাকাকালীন বিভিন্ন উন্নয়নের কথা তুলে ধরে তিনি আরো বলেন, পুনরায় মেয়র নির্বাচিত হলে নগর উন্নয়নে পরিকল্পনা করে জনগণের সঙ্গে মিলেমিশে কাজ করবো। ২০৫০সালের মধ্যে রাজশাহীকে পৃথিবীর উন্নত নগরীতে উন্নীত করতে সকলের কাছে ভোট চান।

স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী মো. মুরাদ মোর্শেদ বলেন, নির্বাচিত হলে রাজশাহী সিটিকে দৃষ্টিনন্দন একটি নগরী হিসেবে গড়ে তোলা হবে। রাজশাহী সিটি হবে মানবিক মর্যাদা সম্পন্ন নগরী। যেখানে সকল নাগরিক সমান সুযোগ সুবিধা ভোগ করবে এবং দুর্নীতিমুক্ত একটি রাজশাহী সিটি একটি মডেল হবে এই অভিমত ব্যাক্ত করেন। সে জন্য সকল ভোটারের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। বাংলাদেশ জাতীয় পার্টির মনোনিত প্রার্থী হাবিবুর রহমান রাজশাহী নগরীরর জলাবদ্ধতা নিরসন, সড়ক উন্নয়নসহ নাগরিক সমস্যাগুলোর সমাধান করবেন বলে ঘোষণা দেন। সেই সাথে নগরী বস্তি এলাকার মানুষদের পুনর্বাসনের উদ্যোগ নেয়া হবে বলে জানান। সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ একটি নির্বাচনের দাবি জানিয়ে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর প্রার্থী শফিকুল ইসলাম বলেন, জনগণের উন্নয়ন আর প্রতিশ্রুতির ফুল ঝুঁড়ি দিতে চাই না। জনগণ সবার ওপরে। নির্বাচিত হলে নগরভবনে নগরপিতা হিসেবে নয়, সেবকভবনে নগরের সেবক হিসেবে বসতে চাই। রাজশাহীকে সমৃদ্ধ শিল্পনগরী হিসেবে গড়ে তোলার অভিমত ব্যাক্ত করেন।

এসময় সিটি কর্পোরেশনের বিভিন্ন ওয়ার্ডের নাগরিকবৃন্দের করা বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর প্রদান করেন প্রার্থীরা। ভোটাররাও দেখে-শুনে যাচাই-বাছাই করে সৎ ও যোগ্য প্রার্থীকে ভোট দেয়ার শপথ নেন। সুজন কেন্দ্রীয় কমিটির সম্পাদক ড. বদিউল আলম মজুমদার অনুষ্ঠানের শুরতে উপস্থিত থাকলেও জরুরী কাজে ঢাকায় চলে যাওয়ার কারণে উপস্থিত সকলের কাছে দুঃখ প্রকাশ করেন। বদিউল আলম মজুমদার বলেন, রাজশাহী সম্প্রীতির শহর, আমি বিশ্বাস করি, শান্তির্পর্ণ, অবাধ ও নিরপেক্ষ ভোট দেয়য়ার সুযোগ পাবেন ভোটাররা। ভোটারদের উদ্দেশ্যে দেখে শুনে বুঝে ভোটাধিকার প্রয়োগের আহ্বান জানান।

অনুষ্ঠানে আওয়ামীলীগ মনোনিত অপর প্রার্থী এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন তাঁর আত্মীয় মারা যাওয়ার কারণে জানাযায় অংশনেয়ার কারণে উপস্থিত হতে পারেননি বলে মহানগর আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আসলাম সরকার প্রার্থীর পক্ষে দুঃখ প্রকাশ করেন। এসময় তাঁর সাথে রাজশাহী মহানগর আওয়ামীলীগের সহসভাপতি মুক্তিযোদ্ধা নওশের আলী উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সুজন, পিস প্রেসার গ্রপসহ বিভিন্ন পর্যায়ের সংগঠন ও বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ।

Leave a Response