Wednesday, October 21, 2020
টপ নিউজসারাদেশ

ছাত্রদলের কমিটি নিয়ে দ্বদ্ব, নগর বিএনপি কার্যালয় ভাংচুর

254views

ছাত্রদলের কমিটি নিয়ে দ্বদ্ব, নগর বিএনপি কার্যালয় ভাংচুর

ছাত্রদলের কমিটি নিয়ে দ্বদ্ব, নগর বিএনপি কার্যালয় ভাংচুরনিজস্ব প্রতিবেদক: রাজশাহী মহানগর বিএনপির কার্যালয়ে ভাংচুর চালিয়েছে পদবঞ্চিত ছাত্রদল নেতাকর্মীরা। নগরীর ছয়টি থানা ও তিনটি কলেজ ছাত্রদলের নতুন কমিটি ঘোষণার পর পদবঞ্চিতরা সোমবার দুপুর ১২টার দিকে এই ভাংচুর চালায়। কার্যালয়ের চারটি জানালার কাঁচ এবং প্রায় ২০টি প্লাস্টিকের চেয়ার ভাংচুর করা হয়েছে। ঘটনার সময় রাজশাহী মহানগর ছাত্রদল ও বিএনপির নেতা-কর্মীদের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করে। পরে বোয়ালিয়া থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। তবে এঘটনায় থানায় কোনো অভিযোগ হয়নি। পুলিশও এঘটনায় কাউকে আটক করেনি।

জানা গেছে, পদবঞ্চিতদের এই হামলার সময় নগরীর মালোপাড়ায় বিএনপি কার্যালয়ে ছাত্রদলের নতুন কমিটির নেতাকর্মীদের সভা চলছিল। সভা পরিচালনা করছিলেন রাজশাহী সরকারি সিটি কলেজ ছাত্রদলের নতুন কমিটির সাধারণ সম্পাদক এমদাদুল হক লিমন। এসময় হঠাৎ করে পদবঞ্চিত নেতাকর্মীরা কার্যালয়ে প্রবেশ করে ভাংচুর শুরু করেন। তাদের দু’পক্ষের মধ্যে হাতহাতির ঘটনা ঘটে। দু’পক্ষই হাতাহাতির ঘটনায় বেশ কয়েকজন আহত হয়েছে বলে দাবি করেছে।

নেতাকর্মীরা জানান, গত রাতে নতুন কমিটির নেতাকর্মীরা বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা মিজানুর রহমান মিনুর বাসায় তার সঙ্গে দেখা করেন। তার মৌখিক সম্মতিতে নতুন কমিটির নেতাকর্মীরা কার্যালয়ে সভা করছিলেন। এসময় পদবঞ্চিতরা লাঠিশোটা নিয়ে ওপর হামলা চালায়। এতে বেশ কয়েকজন নেতাকর্মী আহত হন। পরে নতুন কমিটির নেতাকর্মীদের কার্যালয় থেকে বের করে দিয়ে কার্যালয়ে ভাংচুর চালানো হয়।

ছাত্রদলের নেতা এমদাদুল হক বলেন, যারা হামলা করেছেন তারা ছাত্রলীগের সঙ্গে মেলামেশা করেন। হামলায় কতিপয় যুবদল নেতা এবং অছাত্ররাও উপস্থিত ছিলেন। পদবঞ্চিতরা তাদের এনে হামলার ঘটনা ঘটিয়েছেন। এরআগে গত শনিবার নগরীর বোয়ালিয়া, রাজপাড়া, মতিহার, শাহমখদুম, কাশিয়াডাঙ্গা ও চন্দ্রিমা থানা এবং রাজশাহী কলেজ, সিটি কলেজ এবং নিউ গভ. ডিগ্রি কলেজ ছাত্রদলের কমিটি ঘোষণা করা হয়। এরপ্রেক্ষিতে কমিটিতে পদ না পেয়ে রোববার দুপুরে ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা দলীয় কার্যালয়ে তালা ঝুলিয়ে দেন। পরে একই দিন বিকেলে নতুন কমিটির নেতাকর্মীরা তালা ভেঙ্গে সেখানে পরিচিতি সভা করেন। রোববার দলীয় কার্যালয়ে তালা দেয়ার সময় মহানগর ছাত্রদলের সহ-সভাপতি আরিফুজ্জামানও উপস্থিত ছিলেন। সোমবারের ভাংচুরের বিষয়ে জানতে চাইলে আরিফুজ্জামান বলেন, হামলার ঘটনা শুনে তিনি দলীয় কার্যালয়ে যান। তবে সেখানে তিনি কাউকে পাননি। আরিফুজ্জামান বলেন, নতুন কমিটির নেতাকর্মীরা সভা করছিলেন। আমাদের ছেলেরা গিয়ে তাদের বের হয়ে যেতে বলে। এসময় নতুন কমিটির নেতারা আমাদের ছেলেদের গায়ে হাত তোলেন। এ সময় দুই পক্ষের মধ্যে হাতাহাতি ও চেয়ার ছোঁড়াছুড়ির ঘটনা ঘটে। এটা দুঃখজনক বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

এব্যাপারে নগরীর বোয়ালিয়া থানার তদন্ত কর্মকর্তা নিত্যপদ দাস জানান, ভাংচুরের খবর পেয়ে বিএনপি কার্যালয়ে পুলিশ পাঠানো হয়। কিন্তু পুলিশ পৌঁছার আগেই ভাংচুরের ঘটনা ঘটে যায়। দলীয় কার্যালয়ে কোনো ছাত্রদলের নেতাকর্মীকেই পাওয়া যায়নি। আর কেউ মামলা বা অভিযোগ করেনি। এ জন্য কাউকে আটকও করা হয়নি।

Leave a Response