Friday, October 23, 2020
রাজশাহী

কুরবানী ঈদ-নগরীতে ব্যস্ত কাঠের গুড়ি ব্যবসায়ীরা | রাজশাহী সংবাদ

321views

কুরবানী ঈদ সামনে গাছের গুড়ি ব্যবসায়ীরা ব্যস্ত সময় পার করছেন

কামরুল ইসলাম: কুরবানী ঈদকে সামনে রেখে মাংস কাটার গাছের গুড়ি ব্যবসায়ীরা ব্যস্ত সময় পার করছেন। বিভিন্ন পেশা থেকে এসব ব্যবসায়ীরা এসে মুলত এ কাজে যোগ দিয়েছে। নগরীর বিভিন্ন মোড়ে মোড়ে বিক্রি হচ্ছে মাংস কাটা গাছের গুড়ি। মূলত কোরবানীর পশুর মাংস কাটার জন্য কাঠের গুড়ি ব্যবহার করা হয়। গাছের গুড়ির ব্যবসায় অধিক লাভ হওয়ায় মৌসুমী ব্যবসায়ীরা এ ব্যবসায় যোগদেন। তবে বিক্রেতারা বলছেন, প্রতি বছর কোরবানী ঈদের সময় তারা এ ব্যবসা করেন। অনেক ব্যবসায়ীরা বিভিন্ন জেলা উপজেলায় ঘুরে নিজেরাই গাছ কিনে শ্রমিকদের দ্বারা গাছ কেটে রাজশাহীতে এনে তা খুচরা ও পাইকারী দামে বিক্রি করেন। অনেক খুচরা ব্যবসায়ীরাও গুড়িগুলো পাইকারী দামে কিনে বিক্রি করেন।

কুরবানী ঈদ-নগরীতে ব্যস্ত কাঠের গুড়ি ব্যবসায়ীরা-রাজশাহী সংবাদনগরীর শালবাগার মোড়ের এম এস জ্বালানী উৎস’র মালিক নাসির হেসেন বাবু জানান, তিনি প্রায় ১৯ বছর ধরে এভাবে কোরবানীর সময় মাংস কাটার কাঠ বিক্রি করে আসছে। এবছরে তিনি প্রায় ১০ লাখ টাকা বিনিময়ে করেছিলেন শুধু এই কাঠের গুড়ি কেনা জন্য। বর্তমানে তার দোকানে প্রায় ৩লাখ টাকার মালমাল রয়েছে। গত কয়েক দিনে প্রায় দেড় লাখ টাকার মালামাল বিক্রি হয়েছে। আর ঈদের আগের দিনে বাকি সবগুলে বিক্রি হয়ে যাবে বলেও তিনি আশা প্রকাশ করেন।

অপরদিকে, আমির হোসেন নামে অপর ব্যবসায়ী জানান, তিনি মুলত ফল ব্যবসায়ী। কোরবানীর মওসুম এলে তিনি কাঠের গুড়ির ব্যবসা শুরু করেন। তিনি বলেন, এ ব্যবসা ক্ষনস্থীয় হলেও ব্যবসা লাভজনক। যার ফলে তিনি প্রতিবছর এ ব্যবসা করেন। তিনি বলেন, প্রতি ১০০ মনে পাঁচ থেকে সাত হাজার টাকা লাভ হয়। তিনি এবার ১২০মণ গুড়ি কিনেছেন।

এসব গুড়িগুলো ঠিকা ও কেজি দরে বিক্রি করা হচ্ছে। প্রতি কেজি গুড়ি ২০ থেকে ২৫ টাকা দাম বিক্রি হচ্ছে। একই সাথে এসব ব্যবসায়ীরা কোরবানীর পশু কাটার জন্য ছুরি চাকুও বিক্রি করছেন। এবার একটি চাপ্পড় ৪৫০, বড় ছুরি ৪০০-৫০০, মাঝারি ছুরি ৩০০-৩৫০, ছোট ছুরি ২০০-২৫০ টাকা, চাকু ১২০ টাকা, দামে বিক্রি হচ্ছে। এছড়াও কোরবানীর পশু কাটার পর রাখার জন্য পাটি বিক্রি হচ্ছে প্রতি পিস ৯০-১২০টাকা দামে।

Leave a Response