Tuesday, October 27, 2020
টপ নিউজরাজশাহী

উৎসবের আমেজে আনুষ্ঠানিক প্রচারণা শুরু

225views

উৎসবের আমেজে আনুষ্ঠানিক প্রচারণা শুরু

হাবিব আহমেদ: প্রতিক বরাদ্দের পর রাজশাহী সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হয়েছে প্রার্থীদের প্রচার প্রচারণা। সময় নষ্ট না করে দুপুরের পর থেকে প্রার্থীরা নেমে পড়েন গণসংযোগে। সেই সাথে পোস্টার ব্যানার সাটানোর কাজও প্রথম দিনেই বেশির ভাগ সম্পন্ন করেন। শুধু পোষ্টার ব্যানারই নয়, মাইকেও উঠেছে প্রার্থীদের প্রচারণার ঝড়। ইতোমধ্যে মঙ্গলবার দুপুরের পর নিজ নিজ এলাকা প্রার্থীরা পোষ্টার ব্যানারে ছেয়ে ফেলেছেন। দুপুর গড়ার সাথে সাথে পোস্টারের নগরীতে পরিপুর্ণ হয়ে যায় প্রতিটি এলাকা। বদলে যায় পুরো নগরীর চিত্র। এখন নগরীজুড়ে মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীদের শুধু পোষ্টার আর পোষ্টার। যেদিকেই চোখ যায় সেদিকেই প্রার্থীদের প্রচারণার নমুনা চোখে পড়ছে। রাস্তায় হাটলেও শোনা যাচ্ছে মাইকের আওয়াজ। শুধু পোস্টার মাইক বা ব্যানার নয়, প্রার্থীদের প্রচারণা চলছে সোস্যাল মিডিয়া ফেসবুকেও। তবে মেয়র প্রার্থীদের সাথে কিছু কাউন্সিলর প্রার্থীরা নির্বাচন কমিশন থেকে ইঙ্গিত পাওয়ার পর সোমবার রাতেই তাদের নির্বাচনী পোষ্টার ছাপানোর কাজ শুরু করেন। নির্বাচন কমিশন থেকে ঘটা করে প্রতিক বরাদ্দের পরপরই তারা নিজ এলাকায় পোষ্টার সাটানোর কাজ শুরু করেন।

এদিকে মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীরা ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে, পাড়ায় পাড়ায় নির্বাচন কমিঠি গঠন করেছেন। রীতিমত ছক তৈরি করে নির্বাচনী মাঠে কাজ শুরু করেছেন মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীরা। মেয়র কাউন্সিলর প্রার্থীরা শুধু নিজেরাই নয়, স্ত্রী ছেলে মেয়ে, পরিবারের লোকজনও এই প্রচারণায় সামিল হচ্ছেন। বিশেষ করে বড় দু’দল আওয়ামী লীগ ও বিএনপি দলের শীর্ষ নেতাদের প্রচারণায় ব্যবহার করছেন। আওয়ামী লীগ ও বিএনপির মেয়র এবং কাউন্সিলর প্রার্থীরা রাসিক নির্বাচন চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিয়ে কাজ শুরু করেছেন।

প্রতিক বরাদ্দের পর দুপুর ১২টায় শাহ্মখ্দুম রুপোশ (রহ:) এর মাজার জিয়ারত করেন বিএনপির মেয়র প্রার্থী মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল। এরপর শীর্ষ নেতা সমর্থকদের নিয়ে বেরিয়ে পড়েন গণসংযোগে। একই সাথে প্রতিক বরাদ্দের পর নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করেছেন আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন। এরআগে মেয়র প্রার্থী লিটন দু’বার ইশতেহার ঘোষণা করেছেন। এবার তিনি তৃতীয়বারের মত নগরীর উন্নয়নের ইশতেহার ঘোষণা করেন। তবে এবারের ইশতেহারে নগরীর বিশাল উন্নয়ন ও কর্মসংস্থানের ঘোষণা রয়েছে। লিটন মেয়র থাকাকালীন সময় নগরীর বিশাল উন্নয়ন হয়েছিল। সেই উন্নয়নকে আরো এক ধাপ এগিয়ে নিতে এবার আবার তিনি নগরবাসীকে চমক লাগানো ইশতেহার উপহার দিলেন। নির্বাচনী প্রচারণার শুরুর দিন লিটনের ইশতেহার ঘোষণা অনেকটাই বুদ্ধিমাত্রার পরিচয় বলেও মনে করছেন নগরবাসী। তবে বিএনপির প্রার্থী বুলবুল এ সপ্তাহে না হলেও আগামী সপ্তাহে পরিবেশ পরিস্থিতি বুঝে ইশতেহার ঘোষণা করবেন বলে বিএনপির একাধিক সূত্র নিশ্চিত করেছেন। নগরবাসি দেখার অপেক্ষায় রয়েছেন রাসিকের সদ্য বিদায়ী এই মেয়র প্রার্থী এবার তার ইশতেহারে কেমন চমক দেখাতে পারেন। কারণ গত ২০১৩সালে তিনি যে ইশতেহার ঘোষণা করেছিলেন তার একাংশও বাস্তবায়ন হয়নি। এবার আবার তিনি কি নিয়ে জনগণের মন জয় করবেন তা দেখার অপেক্ষায় রয়েছে ভোটাররা।

এদিকে নগরীর পাড়া মহল্লায় এখন উৎসবের আমেজ। পাড়া মহল্লায় মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীদের নির্বাচনী অফিস তৈরি করা হয়েছে। সেখানে প্রচার প্রচারণার সাথে রয়েছে বিনোদনের আয়োজন। দুপুরের পর থেকে নগরীর বিভিন্ন ওয়ার্ডে প্রার্থীদের প্রচারণার রেকর্ড বাজানো হচ্ছে সাউন্ডবক্সে। প্রতিটি অফিসের সাথে তৈরি করা হয়েছে চা স্টল। মোড়ে মোড়ে তৈরি করা হয়েছে ভ্রাম্যমান চায়ের দোকান। আর চায়ের দোকানে চলছে ভোট নিয়ে আলোচনা।

Leave a Response